বাণিজ্য

রিজার্ভ চুরি : রিজাল ব্যাংকের বিরুদ্ধে মামলা করবে বাংলাদেশ ব্যাংক

বাংলাদেশ ব্যাংকের চুরি হওয়া রিজার্ভের টাকা ফেরত পাওয়ার বিষয়ে নিউ ইয়র্কের আদালতে মামলা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতও সম্প্রতি বলেছেন এ মামলার প্রস্তুতি হিসাবে যুক্তরাষ্ট্রের একটি ল ফার্মকে মামলা পরিচালনার জন্য নিয়োগ দেওয়া হবে।   সূত্র জানায়, চুরি যাওয়া অর্থ ফেরত পাওয়ার জন্য ফিলিপাইনের রিজাল কমার্শিয়াল ব্যাংকিং কর্পোরেশনের (আরসিবিসি) বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের আদালতে মামলা করা হবে। যেহেতু জানুয়ারির মধ্যেই মামলা করতে হবে সেজন্য নভেম্বরের মধ্যে প্রাথমিক সব কাজ সম্পন্ন করা হবে। বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রধান আইনজীবী আজমালুল হোসেন কিউসি বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষের বিষয়গুলো দেখভাল করছেন।   বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর আবু হেনা মোহা. রাজী হাসান গতকাল এ বিষয়ে ইত্তেফাককে বলেন, আগামী জানুয়ারিতে মামলা করার প্রস্তুতি হিসেবে আমাদের আইনজীবী যুক্তরাষ্ট্রের ল ফার্ম নির্বাচনের জন্য সম্ভাব্যতা যাচাই করছে। নিউ ইয়র্কে এ মামলার বাদী হিসেবে বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ও সুইফট কর্তৃপক্ষও থাকতে পারে বলে জানান তিনি। এ বিষয়টি নিয়েও যাচাই বাছাই হচ্ছে বলে তিনি জানান।    বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর আবু হেনা মোহা. রাজী হাসান এ বিষয়ে বলেন, ফিলিপাইনের উচ্চ আদালতে একটা রায় আপিল অবস্থায় আছে। ওই আপিলের সুরাহা হলেই প্রায় ৫১ মিলিয়ন ডলার ফেরত আসবে। আর যে টাকাটা এখনও শনাক্ত হয়নি, তাও শনাক্তের বিষয়ে আমাদের কার্যক্রম চলমান আছে। আমরা আশাবাদী, সম্পূর্ণ অর্থই আমরা ফেরত পাব। সম্পূর্ণ অর্থই যে ফেরত আসবে সে ব্যাপারে আমাদের চিন্তা-ভাবনার কোনো ঘাটতি নেই।   বাংলাদেশের রিজার্ভ চুরির ঘটনার দুই বছর পার হয়ে গেলেও এখনো পর্যন্ত সাড়ে ১৪ মিলিয়ন ডলার অর্থের কোনো হিসাব পায়নি বাংলাদেশ ব্যাংক। এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক বলছে, ওই অর্থ ক্যাসিনোর মাধ্যমে বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে পড়েছে। এমনও হতে পারে তা ফিলিপাইনের বাইরে চলে গেছে।   প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক থেকে সুইফট কোডের মাধ্যমে বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রায় ১০১ মিলিয়ন ডলার চুরি করে নেয় দুর্বৃত্তরা। এর মধ্যে ২ কোটি ডলার চলে যায় শ্রীলঙ্কা এবং ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার চলে যায় ফিলিপাইনের জুয়ার আসরে। এ ঘটনার প্রায় একমাস পর ফিলিপাইনের একটি পত্রিকার সংবাদের মাধ্যমে বিষয়টি বাংলাদেশ জানতে পারে।    

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *