রাজধানী

নির্বাচন বানচাল হলে অস্বাভাবিক সরকার আসবে :ইনু

তথ্যমন্ত্রী ও জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেছেন, বিএনপি নির্বাচন বর্জনের পাঁয়তারা করছে। দন্ডিত অপরাধীর মুক্তির প্রশ্নটা নির্বাচনে অংশগ্রহণের সঙ্গে জুড়ে দিচ্ছে। এতে সরকার সায় দেবে না। কারণ শর্তটা অরাজনৈতিক। এই শর্ত মেনে নেওয়ার মানে হচ্ছে বাংলাদেশে অপরাধতন্ত্রকে মেনে নেওয়া, যা গণতন্ত্রের ওপর কুঠারাঘাত। গতকাল শনিবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) আয়োজিত ‘মিট দ্য রিপোর্টার্স’ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। ইনু বলেন, বিএনপি নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকারের যে দাবি তুলেছে সেটিও ভোট বানচালের চেষ্টা বলে আমরা মনে করি। নির্বাচন বানচাল হয়ে গেলে বাংলাদেশে অস্বাভাবিক সরকার প্রতিষ্ঠা হবে। অস্বাভাবিক সরকার বাংলাদেশে রাজনৈতিক বিপর্যয় ডেকে আনবে। কোনো অবস্থাতেই বাংলাদেশ আর পেছন  দিকে যেতে পারে না। জাসদ সভাপতি বলেন, তাদের এজেন্ডা হচ্ছে বাংলাদেশকে বাংলাদেশের পথ থেকে পাকিস্তান পন্থার পথে আবার ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া। এটা মোকাবেলায় সাংবিধানিক প্রক্রিয়া ও সরকারের ধারাবাহিকতা রাখাটা জরুরি। কারণ সাংবিধানিক সরকার অসাংবিধানিক সরকারের চেয়ে নিরাপদ। তিনি বলেন, যে কোনো মূল্যে রাজাকার-জঙ্গিবাদ-আগুন সন্ত্রাসী ও তার সঙ্গী বিএনপি এবং বেগম খালেদা জিয়াকে ক্ষমতার বাইরে রাখতে হবে। মহার্ঘ্য ভাতার প্রজ্ঞাপন এপ্রিলে:এক প্রশ্নের জবাবে ইনু বলেন, সাংবাদিকদের জন্য নবম ওয়েজ বোর্ড গঠনের পর মহার্ঘ্য ভাতার প্রজ্ঞাপন জারির জন্য তথ্য মন্ত্রণালয় এরইমধ্যে সব ধরনের প্রক্রিয়া শেষ করেছে। সেটি প্রধানমন্ত্রীর স্বাক্ষরের অপেক্ষায় রয়েছে। এপ্রিলের মধ্যেই সেটি জারি করা সম্ভব হবে। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন প্রসঙ্গে তথ্যমন্ত্রী বলেন, এ আইন সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে প্রণীত নয়। জাতির সকল দিক নিরাপদ করতেই এ আইন করা হচ্ছে। তবে যেসব বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করা হচ্ছে তা যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে। আমরা এমনকিছু করব না যাতে সাংবাদিকদের কণ্ঠ রোধ হয়। ডিআরইউ’র সভাপতি সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ শুকুর আলী শুভ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *