বাংলাদেশ

ধর্ম কোনো বৈষম্য সৃষ্টি করে না: ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি

  ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞা বলেছেন, ধর্ম ব্যক্তি বিশেষের জন্য স্বতন্ত্র নয়, ধর্ম কোনো রকম বৈষম্য সৃষ্টি করে না। ধর্মের গ্রহণ বর্জন এবং আবেদন সকলের জন্য সমান।   সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতি বিজয়া পুনর্মিলনী পরিষদ-২০১৭ এর উদ্যোগে সমিতির অডিটোরিয়ামে আয়োজিত ‘বিজয়া পুনর্মিলনী’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি আজ বৃহস্পতিবার এ কথা বলেন।   সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি জয়নুল আবেদীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তৃতা করেন এটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল বাসেত মজুমদার, হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি সৌমেন্দ্র সরকার, সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক ব্যারিস্টার এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকন প্রমুখ। অনুষ্ঠানে সুপ্রিমকোর্টের অন্যান্য বিচারপতিগণ ছাড়াও বিপুল সংখ্যক আইনজীবী উপস্থিত ছিলেন।    বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞা বলেন, ধর্মের অধিকার সকলের জন্য সমান। ধর্ম জাত-পাত চিনবে না। জাত-পাত বিচারও করবে না। ধর্ম কোনো সম্প্রদায় বা সম্প্রদায়িকতার মধ্যে আবদ্ধ হতে চায় না।   তিনি বলেন, আমাদের সংবিধানের অন্যতম স্তম্ভ হচ্ছে ধর্মনিরপেক্ষতা। ধর্মীয় সকল উৎসব আয়োজনে অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টির মাধ্যমে ধর্ম নিরপেক্ষতার প্রতি আমাদের অঙ্গীকার দৃঢ়তম হয়।    তিনি বলেন, মানুষ সমাজবদ্ধ জীব। সমাজ জীবনে একই ভূখন্ডে, একই বলয়ে বসবাস করতে হলে নানা ধর্ম গৌত্র বর্ণ সম্প্রদায় সম্পর্কে বিভিন্ন ভাষাভাষী লোকের সঙ্গে বসবাস করতে হয়। একটি বাগানে নানান জাতের ফুল থাকে, তেমনি একটি রাজ্যে বা রাষ্ট্রে নানা জাতের মানুষ থাকবে। নানা জাতের সঙ্গে সহাবস্থান ঐক্য সংহতির মাধ্যমে একত্রে বসবাস করে মানবজাতির ধর্ম ও সমাজের উন্নয়ন করতে সকলকে বদ্ধ পরিকর হতে হবে।    তিনি আরো বলেন, ধর্ম নিজ আভায় সার্বজনীন বাণীতে উদ্ভাসিত। জ্ঞানের বহ্নি শিখায় প্রজ্জলিত হয়ে দেশের প্রতিটি মানুষ অস্প্রদায়িকতায় অন্ধকার কুপমন্ডকতা আর অকল্যাণকর সকল বাধা পেরিয়ে একটি উন্নত সমাজ গঠনে এগিয়ে আসবে এটাই প্রত্যাশা। বাসস  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *