অফিস আদালত

ঢাকা বার নির্বাচনের দুই দিনব্যাপী ভোটগ্রহণ সম্পন্ন


এশিয়ার বৃহত্তম বার ঢাকা আইনজীবী সমিতির (ঢাকা বার) ২০১৮-১৯ মেয়াদের নির্বাচনের দুই দিনব্যাপী ভোটগ্রহণ আজ শেষ হয়েছে।   মঙ্গলবার ও আজ বুধবার সকাল ৯টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে বিকেল ৫ টার দিকে শেষ হয়। মাঝে বিরতি ছিল এক ঘণ্টা। গতকাল প্রথম দিন তিন হাজার ৬৫২ ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত দুইদিনে সর্বমোট কত ভোট কাস্ট হয়েছে তা জানা যায়নি।    এ নির্বাচনের প্রধান কমিশনার এডভোকেট সালমা হাই টুনি জানান, ঢাকা বার-এর কার্যনির্বাহী কমিটির ২৭টি পদের বিপরীতে মোট ৫৫ জন প্রার্থী এ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধিতা করেছেন। ঢাকা আইনজীবী সমিতিতে নিবন্ধিত আইনজীবীর সংখ্যা প্রায় ২২ হাজার ২৪জন হলেও বৈধ ভোটারের সংখ্যা ১৬ হাজার ১২৯ জন।    তিনি জানান, ভোটগ্রহণ শেষে সর্বসম্মতি ক্রমে নেয়া সিদ্ধান্তের আলোকে গণনা শুরু হয়, যেহেতু ম্যানুয়ালি ভোট গণনা হয় এবং প্রার্থী সংখ্যাও বেশি তাই ফল পেতে বেশকয়েক ঘণ্টা সময় লেগে যায়।   এখানে প্যানেল ভিত্তিক নির্বাচন অনুষ্টিত হয়ে থাকে। একটি সাদা প্যানেল অপরটি নীল প্যানেল। আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন বঙ্গবন্ধু আইনজীবী পরিষদ ও সমমনাদের সমর্থনে সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ সমর্থিতদের সাদা প্যানেল। অপরদিকে বিএনপি সমর্থিত জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম ও সমমনাদের সমর্থনে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্যের নীল প্যানেল।   সাদা প্যানেলের বিভিন্ন পদে প্রার্থীরা হচ্ছেন- সভাপতি পদে আবদুর রহমান হাওলাদার ও সাধারণ সম্পাদক পদে মো. মিজানুর রহমান মামুন। এছাড়া সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে কাজী শাহানারা ইয়াছমিন, সহ-সভাপতি পদে মো. রুহুল আমিন, ট্রেজারার পদে আরিফুর রহমান চৌধুরী সুমন, সিনিয়র সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে মোস্তাফিজুর রহমান তালুকদার দিপু, সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে মো. কামাল হোসেন পাটওয়ারী।   নীল প্যানেলের বিভিন্ন পদে প্রার্থীরা হচ্ছেন- সভাপতি পদে গোলাম মোস্তফা খান ও সাধারণ সম্পাদক পদে মো. হোসেন আলী খান হাসান। সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুস সালাম দেওয়ান, সহ-সভাপতি পদে এ আর মিজানুর রহমান, ট্রেজারার পদে মো. লুৎফর রহমান আজাদ, সিনিয়র সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে মো. নিহার হোসেন ফারুক, সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে মো. সাখাওয়াত উল্লাহ ভুইয়া।   ২৭ টি পদে বড় দুই প্যানেলের বাইরে সদস্য পদে একজন স্বতন্ত্র হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।   নির্বাচন উপলক্ষে ঢাকা বার এলাকায় প্রার্থী প্যানেল ও তাদের সমর্থিকরা মখরিত করে রেখেছে। সেখানে উৎসবমূখর পরিস্থিতি বিরাজ করছে।    ঢাকা বারের সাবেক সভাপতি ও ঢাকার পিপি খন্দকার আব্দুল মান্নান প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। বাসস  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *