ফিচার্ড পোস্ট

কেউ ঘুষ চাইলে জানাবেন : দুদক চেয়ারম্যান


দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে বলেছেন, আপনাদের কাছে কেউ ঘুষ চাইলে আমাদেরকে জানাবেন। সরকারি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ঘুষের তথ্য থাকলে জানাবেন। এতে আপনাদের ব্যবসার ক্ষতি হবে না। তথ্য জানানোর পর আপনারা যেন স্বাভাবিকভাবে ব্যবসা করতে পারেন-সেই নিশ্চিয়তা দিচ্ছি।   আজ বুধবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় দুদক কার্যালয়ে ব্যবসায়ীদের নিয়ে আয়োজিত ‘বাংলাদেশে বিনিয়োগ ও ব্যবসাবান্ধব পরিবেশের জন্য দুর্নীতিমুক্ত সরকারি সেবা’ বিষয়ক এক মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা) ও দুদক যৌথভাবে এই সভার আয়োজন করে।   সভায় অন্যান্যের মধ্যে বিডার নির্বাহী চেয়ারম্যান কাজী আমিনুল ইসলাম, বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশনের (এফবিসিসিআই) পরিচালক হাসিনা নেওয়াজ, ঢাকা চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি’র (ডিসিসিআই) পরিচালক সেলিম আকতার খান, বাংলাদেশ-মালয়েশিয়া চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি’র (বিএমসিসিআই) সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন, মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্সের (এমসিসিআই) মহাসচিব ফারুক আহমেদ প্রমূখ বক্তব্য রাখেন।   ইকবাল মাহমুদ বলেন, ব্যবসায়ীদের মতো আমরাও চাই-ঘুষ-দুর্নীতি বন্ধ করে ব্যবসায় পরিবেশ নির্বিঘ্নে করতে। এ জন্য ব্যবসায়ীদেরকে এগিয়ে আসতে হবে। কেউ আপনাদের কাছে ঘুষ চাইলে-সেসব তথ্য সুনির্দিষ্টভাবে জানালে আমাদের কাজ সহজ হয়।   অনুষ্ঠানে বিএমসিসিআই সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন অভিযোগ করেন ঘুষ-দুর্নীতির তথ্য জানালে সেই ব্যবসায়ী ক্ষতিগ্রস্ত হন। তিনি আরো বাঁধার সম্মুখীন হন।    জবাবে দুদক চেয়ারম্যান তাকে অভয় দিয়ে বলেন, আপনারা যদি ভয় পান যে, এভাবে যদি ঘুষখোরকে ধরিয়ে দেই, তাহলে আমার কাজ চিরদিনের জন্য বন্ধ হয়ে যাবে। কিন্তু আমি বলছি,আপনার কাজ চিরদিনের জন্য স্বাভাবিক হয়ে যাবে। আপনাদের নিশ্চয়তা দিতে চাই, আপনারা স্বচ্ছ মনে ব্যবসা করবেন।   তিনি ব্যাংকিং খাতের দুর্নীতির প্রসঙ্গ উল্লেখ করে বলেন, আমরা একমত নই যে ব্যবসায়ীরা দুর্নীতিগ্রস্ত। ব্যাক টু ব্যাক এলসি, ওভার ইন ভয়েস ও আন্ডার ইন ভয়েসের মাধ্যমে যে দুর্নীতি হয় সে বিষয়ে আমাদের উদ্বেগ। আমরা চাই আপনারা স্বচ্ছভাবে ব্যবসা করেন। ঋণ নেবেন সেটা আমাদের বিষয় নয়। আমরাও চাই ব্যবসার প্রয়োজনে ঋণ নেন। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে অনেক সময় ঋণ ক্ষেত্রে ভুয়া কাগজপত্র দেয়া হয়। তাই আমরা বলতে চাই, যথাযথ কাগজপত্র দিয়ে ঋণ নেবেন। আপনারা যখন গ্যারান্টি দেবেন তা যেন সত্যিকারের গ্যারান্টি হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *