খেলা-ধূলা

আট গোলের ম্যাচে রিয়ালের রোমাঞ্চকর জয়

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
রিয়াল বেতিসের বিপক্ষে রোমাঞ্চকর জয় পেয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। লা লিগার ম্যাচে রবিবার রাতে পিছিয়ে পড়েও ৫-৩ গোলের স্বস্তির জয় পেয়েছে জিনেদিন জিদানের শিষ্যরা। ম্যাচ সেরা মার্কো আসেনসিও করেছেন দুই গোল। বাকি তিন গোল করেছেন সার্জিও রামোস, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ও করিম বেনজেমা।  সেভিয়ার বেনিটো ভিলামারিনের মাঠে দারুণ এক ম্যাচে রিয়াল মাদ্রিদ বিরতির সময় ১-২ গোলে পিছিয়ে ছিল। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা দারুণভাবে লড়াইয়ে ফিরে আসে। সপ্তাহের মাঝামাঝিতে চ্যাম্পিয়নস লিগের প্রথম লেগে প্যারিস সেন্ট-জার্মেইকে (পিএসজি) ৩-১ গোলে হারিয়ে দারুণভাবে আত্মবিশ্বাস ফিরে পায় রিয়াল। সেই আত্মবিশ্বাস এবার লা লিগাতেও দারুণভাবে কাজে লাগাল রিয়াল।    জয় সত্ত্বেও পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থানধারী বার্সেলোনার চেয়ে ১৭ পয়েন্ট পিছিয়ে থাকা রিয়াল চতুর্থ স্থানেই রয়েছে। লিগে গত পাঁচটি অ্যাওয়ে ম্যাচে এটি তাদের চতুর্থ জয়। তৃতীয় স্থানে থাকা ভ্যালেন্সিয়ার থেকে এখন রিয়াল মাত্র এক পয়েন্ট পিছিয়ে রয়েছে। ম্যাচ শেষে জিদান বলেছেন, ‘এটা সত্যিই দারুণ ম্যাচ ছিল। আমি বেশ উপভোগ করেছি। এখানে একটি বিষয় প্রমান হয়েছে আমরা সঠিক পথেই আছি। বেতিসও দারুণ খেলেছে। প্রথমার্ধের শেষ ভাগটা তাদের নিয়ন্ত্রণেই ছিল। কিন্তু দিনের শেষে আমি সত্যিই খুশি। তিন গোল আমরা হজম করেছি ঠিকই, কিন্তু নিজেদের পাঁচ গোলের ওপরই বেশি গুরুত্ব দিতে চাই।’ পিএসজির বিপক্ষে বদলি বেঞ্চ থেকে উঠে এসে রিয়ালের শেষের দিকে দুই গোলের যোগানদাতা ছিলেন অ্যাসেনসিও। তারই পুরস্কারস্বরূপ কাল মূল একাদশে নেমেই কোচের আস্থার প্রতিদান দিয়েছেন এই তরুণ মিডফল্ডার। ১১ মিনিটে রোনালদোর শট বেতিস গোলরক্ষক অ্যান্টোনিও আদান আটকে দিলে ফিরতি বলে অ্যাসেনসিও রিয়ালকে এগিয়ে দেন। ৩৩ মিনিটে জোয়াকুইনের ক্রসে আসিয়া মান্ডি হেডের সাহায্যে সমতা ফেরান। চার মিনিটের মধ্যে ডিফেন্ডার নাচোর ভুলে আত্মঘাতি গোলে পিছিয়ে যায় রিয়াল। ইনজুরির কারণে ৩০ মিনিটে মার্সেলো মাঠ ছাড়লে তা রিয়ালের জন্য দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। পিএসজির বিপক্ষে দ্বিতীয় লেগের ম্যাচকে সামনে রেখে মার্সেলোরা ইনজুরি জিদানকে ভাবিয়ে তুলেছে।    বিরতির পর অবশ্য দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ায় রিয়াল। ৫০ মিনিটে লুকাস ভাসকুয়েজের কর্ণার থেকে রামোস দারুণ হেডে ম্যাচে সমতা ফেরান। ৫৯ মিনিটে ডানি কারভাজালের সহায়তায় অ্যাসেনসিও আবারো রিয়ালকে এগিয়ে দেন। ৬৫ মিনিটে রোনালদো দলের পক্ষে চতুর্থ গোল করলে রিয়ালের জয় অনেকটাই নিশ্চিত হয়ে যায়। লিগ ও চ্যাম্পিয়নস লিগ মিলে শেষ ছয় ম্যাচে পর্তুগিজ এই তারকা ১০টি গোল করলেন। ৮৫ মিনিটে বদলি খেলোয়াড় সার্জিও লিওনের সহায়তায় ক্রিস্টিয়ান টেলো বেটিসের হয়ে এক গোল শোধ করলেও তা খুব একটা কাজে আসেনি। উল্টো বদলি বেঞ্চ থেকে উঠে এসে ইনজুরি টাইমে গোল করে দলকে আরো এগিয়ে দিয়েছেন ফ্রেঞ্চম্যান বেনজেমা।    দিনের অপর ম্যাচগুলোতে রিয়াল সোসিয়েদাদ ৩-০ গোলে লেভান্তেকে, অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ ২-০ গোলে অ্যাথলেটিক বিলবাওকে হারায়। এস্পানিওল ১-১ গোলে ভিয়ারিয়ালের সঙ্গে ড্র করেছে।  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *